No icon

গোপনীয়তার দিন শেষ, সামনে এলো ‘মিশন এক্সট্রিম’

যোদ্ধা ডেস্কঃ ‘রাজধানীর মিরপুর, উত্তরা এবং গাজীপুরের বেশ কয়েকটি লোকেশনে টানা দেড় মাস শুটিং হয়েছে ‘মিশন এক্সট্রিম’ ছবির। কিন্তু ঘুণাক্ষরেও বিষয়টি জানাননি মিডিয়াকে। ইতোমধ্যেই ছবিটির শুটিং প্রায় শেষ। আর কয়েক দিন কাজ করলেই সম্পাদনার টেবিলে উঠবে ‘মিশন এক্সট্রিম’ । ছবিটিতে অভিনয় করছেন আরেফিন শুভ ও মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী। এছাড়াও আছেন ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর সফল খল অভিনেতা তাসকিন রহমান ও বলিউড অভিনেত্রী সাদিয়া নাবিলা, সুমিত সেন গুপ্ত সহ অনেকে।
‘ঢাকা অ্যাটাক’র পর বাংলাদেশের দ্বিতীয় পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা হতে যাচ্ছে ‘মিশন এক্সট্রিম’। কপ ক্রিয়েশনের ব্যানারে ছবিটির কাহিনী, চিত্রনাট্য এবং সংলাপ লিখেছেন ‘ঢাকা অ্যাটাক’-এর সফল কাহিনীকার ও পুলিশ কর্মকর্তা সানী সানোয়ার। শুধু কাহিনীই নয়, এটি পরিচালনার দায়িত্বও রয়েছে সানোয়ারের কাঁধে। তার সঙ্গে যৌথ ভাবে ছবিটি পরিচালনা করছেন ফয়সাল আহমেদ।
বাংলাদেশ অংশের শুটিং প্রায় শেষ। এবার ‘মিশন এক্সট্রিম’ যাবে মধ্যপ্রাচ্যের কোনো একটি দেশে। কারণ সেখানে হবে এর বাকি শুটিং। খুব শীঘ্রই টিম নিয়ে রওনা হবেন সানী সানোয়ার ও ফলসাল আহমেদ। এগুলো সহ ছবিটির বিভিন্ন বিষয় জানাতে গতকাল সোমবার (২৯ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ছবিটির পরিচালক। যদিও শুটিং চলাকালীন এর কোনো খবরই প্রকাশ করেননি তিনি। শুধু তাই নয়, সোশ্যাল মিডিয়ার এই যুগে ছবিটির শুটিংয়ের কোনো ভিডিও বা স্থিরচিত্রও দেখা মেলেনি সানোয়ারের জন্যই। 
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ‘মিশন এক্সট্রিম’-এর নায়ক আরেফিন শুভ, তাসকিন রহমান, নায়িকা জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী, সাদিয়া নাবিলা, মনোজ প্রামাণিক, ইমরান সদাগর, সুদীপ্তসহ অন্যান্য কলাকুশলীরা।

সংবাদ সম্মেলনে পরিচালক সানী সানোয়ার বলেন, ‘আমরা ছবির প্রতি পূর্ণ মনযোগ রাখতে চেয়েছি। সেজন্য টানা শুটিং করেছি। আমাদের লক্ষ্য ছিল এপ্রিলের মধ্যেই দৃশ্যধারণ শেষ করার। সেই অনুযায়ী কাজ হয়েছে। আর একটু শুটিং বাকি। সেটি হবে দেশের বাইরে। মধ্যপ্রাচ্যের কোনও একটি দেশে এটি হবে।’
দৃশ্যধারণে গোপনীয়তা প্রসঙ্গে সানী সানোয়ার বলেন, ‘চলচ্চিত্রটিতে আমরা অনেক ঝুঁকি নিয়েছি। অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এতে যুক্ত। আবার বেশ বড় পরিসরে আমাদের কাজ করতে হয়েছে। পুরো কাজটি খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে করতে চেয়েছি। কারণ, এতে টিম স্পিরিটটা থাকে। তাই আমাদের মনোযোগ রাখতে চেয়েছি শুটিংয়ে। আমাদের পরিকল্পনা ছিল, শুটিং শেষ করার পর অন্যদিকে মনোযোগ দেওয়া। এছাড়া পোস্টারের মাধ্যমে এর লুকগুলো প্রকাশ করতে চাই। তাই এতদিন এর কোনও ফুটেজ বা ছবি প্রকাশ করা হয়নি।’

আরেফিন শুভ বলেন, ‘এখন পর্যন্ত যে কয়টি ছবিতে কাজ করেছি সেগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি শারীরিক পরিশ্রম করতে হয়েছে ‘মিশন এক্সটিম’-এ। নিজের মধ্যে অনেক পরিবর্তন এনেছি। পুরো ফিট হয়েই ছবিটার কাজ শুরু করেছি। এখন তেমন কিছুই বলতে চাই না। আর বলাও ঠিক হবে না। শুধু বলবো যারা ‘ঢাকা অ্যাটাক’ দেখে বিনোদন পেয়েছিলেন তারা এই ছবিটি দেখে আরও বেশি মুগ্ধ হবেন। যখন ছবিটা সবাই প্রেক্ষাগৃহে দেখবেন তখন বলতে পারবে আসলে আমরা কি করতে চেয়েছি বা কতটুকু করেছি।’
মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের ঐশী ‘মিশন এক্সট্রিম’ দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক করতে যাচ্ছেন। তিনিও জানিয়েছেন তার অভিজ্ঞতা। ঐশী বলেন, ‘মিশন এক্সট্রিম আমার জন্য দারুণ এক সুযোগের নাম। ক্যারিয়ারের প্রথম সিনেমাতেই একটি ভালো প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান, বিগ বাজেট, ভালো গল্প ও গুণী সব তারকাদের সঙ্গে কাজের সুযোগ পেয়েছি। পরিচালক সানী সানোয়ার ভাইকে ধন্যবাদ আমাকে এই ছবিতে সুযোগ দেওয়ার জন্য।’

 

Comment